Eye Tech 24 https://www.eyetech24.com/2021/01/6-rules-to-increase-speed-of-mobile.html

মোবাইল ফোনের স্পিড বৃদ্ধির ৬টি নিয়ম | 6 rules to increase the speed of mobile phone

 




বর্তমান যুগে প্রয়োজনীয় গুরুত্বর্পূন জিনিস গুলোর মধ্যে মোবাইল ফোন একটি জনপ্রিয় ডিভাইস । তবে এটি ব্যাবহারের কিছু নিয়ম ও বাধাবিঘ্ন আছে ।  এবং বেশি ফোন ব্যাবহারের ফলে গতি কমে যায় । এমন অনেকে আছেন যারা ফোনের স্পিড বৃদ্ধি করার বিষয়টি নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন ।  কিন্তু কিভাবে ফোনের স্পিড বৃদ্ধি করবেন তা অনেকে জানেন না । এ সর্ম্পকিত বিস্তারিত আলোচনা জানতে নিচের পোস্টি সর্ম্পুনো পড়ে শেষ করুন ।


১ । অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ আনইন্সটল করে ফেলুন : 

এন্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়ানোর সবচেয়ে উওম উপায় হচ্ছে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো আনইন্সটল করে ফোলা । মোবাইলে প্রচুর পরিমান স্টোরেজ থাকার কারনে আমরা  অতিরিক্ত অ্যাপ নিয়ে ফোন পুরো ফেলি  । কিন্তু এ অ্যাপগুলো কোনো ধরনের ফোনের স্টোরেজে  প্রভাব ফেলেনা, এবং ফোনের র‍্যামে  জায়গা দখল করে থাকে বেশির ভাগ অ্যাপই । য়ার কারণেই ফোনে অ্যাপ অনেক থাকলে ফোনের গতি কমে যায় । তাই যথাসম্ভ চেষ্টা করবেন  আপনার এন্ড্রয়েড ফোনে যথাসম্ভব কম এবং শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো রাখতে ।



২ । ইন্টারনাল স্টোরেজ সম্ভবত ফাঁকা রাখেন :


এন্ড্রয়েড ফোনের গতি বৃদ্ধি করতে আরেকটি উপযুক্ত উপায় হচ্ছে ইন্টারনাল স্টোরেজ সম্ভবত ফাঁকা রাখা  । কিন্তু আপনাকে আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ একেবারেই ফাঁকা রাখতে বলছিনা । মনে  করুন ,আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ ১৬ জিবি এবং আপনি ২জিবি জায়গা নেয়, এমন অ্যাপ চালিয়ে  থাকেন  ।  যখন ঔ অ্যাপটি চালাবেন, তখন ঔ অ্যাপের ডাটাগুলো লোড করতে অ্যাপটি ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজকে ব্যবহার করে থাকে । যার জন্য ঔ ২জিবির অ্যাপটি চালাতে আপনার ফোনে কমপক্ষে   ২ - ৪   জিবি ফ্রি ফাঁকা জায়গা থাকা প্রয়োজন ।  এরকমভাবে ইন্টারনাল স্টোরেজ  জায়গা ফাঁকা  রাখার ফলে অ্যাপগুলো খুব সুন্দরভাবে রান করবে এবং ফোনের গতিও বৃদ্ধি পাবে ।




৩ । মাইক্রো-এসডি কার্ড ব্যবহার করেন :

 আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ ফাঁকা রাখতে আপনি পারলে ফোনে এক্সট্রা মাইক্রো-এসডি কার্ড অর্থাৎ মেমোরি কার্ড ব্যবহার করেন । কিন্তু  মাইক্রো-এসডি কার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বর্পূনো যে বিষয়টি মনে রাখা দরকার সেটি হলো ঔ মাইক্রো-এসডি কার্ডের ডাটা লোডিং গতিকেমন ধরনের । যদি  আপনার ফোনে একটির কম দুর্বল মাইক্রো-এসডি কার্ড ব্যবহার করেন থাকেন , তবে ফোন আগের  চেয়ে  আরো বেশি ধীর হয়ে যাবে । যার জ্ন্য মাইক্রো-এসডি কার্ড ক্রয়ের সময় ভালোভাবে পরীক্ষা করে নিবেন ।



৪ । অ্যাপের ক্যাশ মুছে ফেলুন :

মেসেঞ্জার , ইন্সটাগ্রাম, ফেসবুক ,ক্রোম, ইত্যাদি অ্যাপগুলো মোবাইলে অনেক পরিমাণ ক্যাশ [Cache] তৈরী করে থাকে ৷ এরকম ডেটাগুলো ঔ অ্যাপের সেটিংসের ভিতরে গিয়ে Clear করুন । কিন্তু  সাবধান অ্যাপের ডাটাগুলো আবার  Clear করবেন না । নইলে ঔ অ্যাপে থাকা প্রয়োজনীয় তথ্য মুছে যাওয়ার সম্ভাবনা থেকে থাকে  ।   যার ফলে আপনি লগ-আউটও হয়েও যেতে পারেন ।



৫ । মোবাইল “ফুল রিসেট” করেন :

সমস্থ নিয়ম মেনে ফোন ব্যাবহার করে অথবা সেটিংস এ গিয়ে পরিবর্তন করেও যদি আপনার ফোনের গতি না বৃদ্ধিপায়  , তবে ফোন ফুল রিসেট করে একবার  দেখতে পারেন । ফুল রিসেটকে হার্ড রিসেটও বলা  হয়ে  থাকে । সেই ক্ষেত্রে ফোনে থাকা সমস্থ ডেটা হারিয়ে যাবে । তাই ফোন রিসেট এর আগে সমস্থ তথ্য ব্যাকাপ নিয়ে রাখতে হবে ।


৬ । ব্যাটারি পরিবর্তন করুন : 

আবার অনেক সময় দূর্বল ব্যাটারির কারণেও ফোনের পারফরম্ন্সে ভালো দেয় না । যার জন্য নিশ্চিত করার চেষ্টা করুন যাতে আপনার ফোন ধীর গতি হওয়ার পেছনে ব্যাটারিজনিত কোনো সমস্যা না থাকে ।  যার   কারনে আপনি  ফোনের ব্যাটারি পরির্বতন করে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকতে পারেন । 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

সর্বশেষ আপডেটেড অফার পেতে চান?

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া