Eye Tech 24 https://www.eyetech24.com/2021/01/ways-to-keep-your-computer-cool.html

আপনার কম্পিউটারকে ঠান্ডা রাখতে উপায় | Ways to keep your computer cool

 



এমন অনেকে আছেন যারা কম্পিউটার গরম হওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় আজেন । যা কম্পিউটার চালাতে আপনাকে বিরক্তিবোধ করে তোলে । এ সকল সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে থাকেন ,তবুও এ সমস্যা থেকে বের হতে পারে না । যারা এ সমস্যা থেকে রেহায় পতে চান তারা নিন্মোক্ত পোস্টি সর্ম্পূনো  পড়ে শেষ করুন :

১ । গরম বাতাস বের করুন :

সবচেয়ে সহজ ও ঋামেলাহীন উপায় হলো আপনার  কম্পিউটারের গরম বাতাস বের করে দিন । কম্পিউটারে সিপিইউ ও জিপিইউ থাকে ,যাকে ঠান্ডা রাখতে কম্পিউটারে সিল্ক ব্যবহার করা হয় । সিল্ক তাপ গ্রহন করে বাইরে বের করে দেয় । যেখানে কোন ধরনের সমস্যা থাকলে তা পরিষ্কার করে দিতে হবে । এছাড়াও যদি আপনার কম্পিউটার দেয়ালের সাথে ঠেকে থাকে তাহলে সেখানে থেকে কম্পিউটার দুরে রাখুন । 




২। কম্পিউটারের কেসিং :


এমন অনেক ব্যাক্তি আছেন যারা মনে করেন কেসিং খোলা রাখলে ভালো হবে । কেননা কেসিং গরম বাতাস বের করে দেয় ,যার কারনে বাতাস বেশি পরিমানে বের হবে ভেবে কেসিং খোলা রাখেন । এটি করা ঠিক নয় কেননা কেসিং খোলা রাখলে তার ভেতর দিয়ে প্রচুর পরিমানে ধুলা ঢুকে গিয়ে কেসিং জাম করে দেয় । এক সময় কেসিং বন্ধ হয়ে যায় । যার কারনে কেসিং বন্ধ রাখাই হলো সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ । 




৩। কম্পিউটার পরিষ্কার রাখুন :


যারা কম্পিউটার ব্যবহার  করেন তাদের কম্পিউটার পরিষ্কার রাখা অত্যন্ত জরুরি । সবসময় হয়তো কারও ঘরের চার দেয়ালের জানালা দরজা বন্ধ থাকে না । যার কারনে কম্পিউটারে প্রচুর পরিমানে ধুলা জমতে পারে । তাই কম্পিউটার পরিষ্কার রাখতে হবে নইলে ভেতরে ধুলাবালি ঢুকে নষ্ট হয়ে যাবে । নিয়মিত কম্পিউটার পরিষ্কার রাখতে হবে ,এবং ঘরের বাইরে গিয়ে পরিষ্কার করতে হবে না ছাড়া আবার কম্পিউটারে ধুলাবালি পড়তে পারে । 

৪। নিরাপদ স্হানে রাখুন :


হয়তো এমন হতে পারে আপনি কম্পিউটার যেখানে রেখেছেন সেখানে ঘরের তাপমাএা বেশি কিংবা বাতাস বের হবার কোনো জায়গা নেই । তাহলে আপনি এক্ষনি সেখান থেকে কম্পিউটার সরিয়ে ফেলুন । কেননা ধুলাবালি প্রবেশ ও গরম বাতাস বের না হওয়ার কারনে কম্পিউটার  বিকল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । 

৫। মানসম্মত কুলিং ফ্যান :


সাধারনত পিসির  সাথেই কুলিং ফ্যান দেওয়াই থাকে তবে সেগুলো অতটা শক্তিসম্পন্ন হয় না । যার জন্য আপনি বাইরে আলাদা ভাবে কুলিং ফ্যান লাগাতে পারেন । তবে এদিকে লক্ষ রাখতে হবে যে সেটি যেন একটু ভালে ধরনের হয় ,নইলে আপনি কুলিং ফ্যান পরিবর্তন করতে করতে পেরেশান হয়ে যাবেন । 




৬। ওয়াটার কুলিং সিস্টেম :


অত্যধুনিক শক্তিশালী পিসিগুলোর ক্ষেত্রে খালি ফ্যান দিয়ে বাতাস  পার করে দেয়াই সর্ম্পূনো না। তারজন্য আপনি ওয়াটার কুলিং সিস্টেম ইন্সটল করতে পারেন যেটা পানির মাধ্যমে তাপ শোষণ করে ও এটি  বেশি কার্যকর ।





৭।ফেইজ চেঞ্জ অংশ :


অত্যাধুনিক কুলিং টেকনোলজি এটি ।  মূলত সিপিইউ এর জন্য এক ধরনের রেফ্রিজারেটর ।এটি সিপিইউ ঠাণ্ডা করতে রেফ্রিজারেটরের পদ্ধতিই ব্যবহার করা হয় । এমনকি এটি আপনার সিপিইউকে ফ্রিজ করে দেয়ার ক্ষমতাও রেখে থাকে। তবে এগুলো অত্যন্ত দামি হওয়ায় সকলে কম ব্যবহার করে । তবে যদি এটি ব্যবহার করা হয় তাহলে বেশি নিরাপওা পাওয়া যাবে । অনেকে এটি ব্যবহার করে তাদের কাছ থেকে আপনি পরার্মশ নিতে পারেন । 

৮। বিভিন্ন কম্পোনেটের জন্য আলাদা ফ্যান :


আপনার কম্পিউটার যদি অতিরিক্ত তাপ উৎপন্ন করে তাহলে আপনার পিসি সমস্যায় পড়তে পাড়ে । যার জন্য আপনি প্রত্যেক জায়গায় আলাদা আলাদা ভাবে কুলিং ফ্যান লাগাতে পারেন । যাতে করে আপনার র‌্যাম ,রোম ,জিপিইউ ভালো থাকবে । এতে করে আপনি নিশ্চিন্তে কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারবেন । 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া